সর্বশেষ

কলামিস্ট | আপডেট: ১২:৫৪, সেপ্টেম্বর ০৩ , ২০১৭

প্রেম, সাম্য ও বিদ্রোহের কবি নজরুল
এ, এম মাঈনুল মান্নান চৌধুরী


এ যেন স্বপনে-দেখা কবেকার মুখ
এ যেন কেবলি সুখ কেবলি এ দুখ
ইহারে দেখিতে হয়—ছোঁওয়া
নাহি যায়
এ যেন মন্দার- পুষ্প দেব-অলকায়"
—— কাজী নজরুল

প্রেম, সাম্য ও বিদ্রোহের কবি
নজরুল। তাইতো প্রেম-বিরহ প্রকৃতির সুর ধ্বনিত হয় কবি কন্ঠে, নিত্য প্রতিধ্বনিত হয় কবির সৃষ্টিতে। অসংখ্য কবিতা-গানের জনক প্রেমময় নজরুল চিরদিনই প্রেমের কাঙ্গাল। নজরুলের কবিতা-কাব্য,
গানে প্রেম বিরহের দোটানায়
পরিপূর্ণ, নজরুলের প্রথম প্রেমিকা সৈয়দা খানম( কবি প্রদও নাম, নার্গিস অাসার খানম) কুমিল্লার দৌলতপুর গ্রামে যার বাস। ১৯২০ সালে বাঙ্গালী পল্টন ভেঙ্গে দেওয়ায় নজরুল চাকুরি হারা হয় কিন্তু শুরু হয় ব্যাপক হারে পত্রিকায় লেখালেখি, নজরুলের সঙ্গী হয় বিভিন্ন লেখক ও প্রকাশক।তাদের মধ্য অালী অাকবর খান অন্যতম, যিনি নিজের লেখা ফেরি করে বিক্রি করতেন, পরে প্রকাশক হিসাবেও প্রতিষ্ঠিত হয়। অালী অাকবর খানকে কবিতা লিখে দেওয়ার মাধ্যমেই কবির সাথে ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধি পায়। অালী অাকবরের নিমন্ত্রণে কবি কুমিল্লায় অাসেন।

কুমিল্লা থাকা কালে বাঁশির সুরে মন কাড়েন অালী অাকবরের ভাগনি নার্গিসের।কবি প্রথম বারের মত ধরা পড়েন নারী মোহে, কবি তা প্রকাশও করলেন অালী অাকবরের কাছে। অালী অাকবরের বিয়ার সকলঅায়োজন করেন, কিন্তু অালীঅাকবরের কাবিনের উল্লেখিতশর্তে বাসর রাতে পলায়ন করেন কবি, উল্লেখ্য এখানে মতান্তরঅাছে কবি সাথে অাকদ্ হওয়ানিয়ে, যেহতু কবি দ্বিতীয় বিবাহকরেন এবং অনেকাংশেঅানুষ্ঠানিক বিবাহ বিচ্ছেদেরকথা বর্ণিত অাছে, সেহেতু করির সাথে নার্গিসের অাকদ্ হওয়ারকথাটাই যুক্তিযুক্ত। কবি দৌলতপুর অাসার পর থেকেই তার বন্ধুমহলের সাথে যোগাযোগ কমে যায়, এই
যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম
ছিল পত্র । কবি বন্ধুদের পত্র দিলে অালী অাকবর তা গায়েব করে ফেলত, অবশ্য পরে এর সত্যতা পাওয়া যায়। পত্রের মাধ্যমে কবির সাথে নার্গিসের প্রনয়ের /প্রেমের খবর তৎকালিন পত্রিকায়
খবরে অাসে, কবি বন্ধুরা
নার্গিসকে দৌলতপুরের দৌলত
নামে অবহিত করে অভিবাদন
জানায় নতুন দম্পতিদের। যদিও কলকাতায় কবি দম্পতি বরণের অায়োজনে ব্যস্থ কবি বন্ধুরা কবি কাবিনের শর্তে কবির অাকদ্ হওয়া সর্ত্বেও পালিয়ে যায়কুমিল্লা,কবি পরে অবশ্য বলেছেননার্গিসের প্রতি করির কোনক্ষোভ বা জিঘাংসা নাই , শুধুইব্যক্তিত্ব রক্ষায় কবির পলায়ন।
কবি কলকাতায় পৌঁছে অালী
অাকবরের কছে চিঠি লিখেন
চিঠিটায় কবির ক্ষোভ ফুটে ওঠে..

"বাবা শশুর,

আপনাদের এই অসুর জামাই পশুর মতব্যবহার করে এসে যা কিছু কসুরকরেছে, তা ক্ষমা করো সকলে,অবশ্য যদি আমার ক্ষমা চাওয়ারঅধিকার থাকে। এইটুকু মনেরাখবেন,
আম্র অন্তর-দেবতা নেহায়েৎ
অসহ্যনা হয়ে পড়লে আমি কখনো কাউকেব্যাথা দিই না। যদিও ঘা খেয়েখেয়ে
আমার হৃদয়টাতে “ঘাটা বুজে’
গেছে,তবুও সেটার অন্তরতম প্রদেশটাএখনো শিরীষ ফুলের পরাগের মতইকোমল আছে। সেখানে খোঁচালাগলে
আর আমি থাকতে পারিনে। তা-
ছাড়াআমিও আপনাদের পাঁচজনের মতইমানুষ, আমার গন্ডারের চামড়া নয়;কেবল সহ্য গুনটা একটু বেশি। আমার
মান-অপমান সম্বন্ধে কান্ডজ্ঞান
ছিল না বা ‘কেয়ার’ করিনি বলে
আমিকখনো এত বড় অপমান সহ্য করিনিযাতে আম্র ‘ম্যানলিনেসে’ বাপৌরুষে গিয়ে বাজে- যাতেআমায়কেউ কাপুরুষ, হীন ভাবতে পারে।আমিসাধ করে পথের ভিখারী সেজেছিবলেলোকের পদাঘাত সইবার মতন‘ক্ষুদ্রআত্মা’ অমানুষ হয়ে যাইনি। আপন
জনের কাছ থেকে পাওয়া
অপ্রত্যাশিত এই হীন ঘৃণা, অবহেলা আমার বুকভেঙ্গে দিয়েছে বাবা! আমিমানুষের
উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছি।
দোয়াকরবেন আমার এ ভুল যেন দ’দিনেইভেঙে যায়- এ অভিমান যেনচোখের
জলে ভেসেযায়!বাকী উৎসবের জন্য যত শীগগীরপারি
বন্দোবস্ত করবো। বাড়ির সকলকেদস্তুরমত সালাম দোয়া জানাবে।অন্যান্য যাদের কথা রাখতেপারি নিতাদের ক্ষমা করতে বলবেন।তাকেও
ক্ষমা করতে বলবেন, যদি এই ক্ষমাচাওয়া ধৃষ্টতা না হয়।

আরজ-ইতি
চিরসত্য স্নেহ-সিক্ত
নূরু।"

এই চিঠির "পরবর্তী বন্দোবস্ত "
মধ্য অনেকটা বিচ্ছেদের কথাই
বুঝায়, যা হউক এতে প্রমানিত হয়কবির ব্যাক্তিত্বের জন্যই
নার্গিসের ভালবাসা উপেক্ষা
করতে বাধ্য হন কিন্তু কবি তার
প্রথম প্রেমকে কিছুতেই ভুলতে
পারছিলেনা তার স্মৃতি নিয়েই
রচনা করেন অসংখ্য গান কবিতা।কবি এই বিচ্ছেদের ১৫ বছর পরনার্গিসকে স্মরণ করেন ঠিক এইভাবে,

"'তার জ্বর হয়েছিল, বহু সাধনার পরআমার তৃষিত দুটি কর তার শুভ্রসুন্দর ললাট স্পর্শ করতে পেরেছিল;তার সেই তপ্ত ললাটের স্পর্শ যেনআজও অনুভব করতে পারি। সে কি
চেয়ে দেখেছিল? আমার চোখে
ছিলজল, হাতে সেবা করার আকুলস্পৃহা,অন্তরে শ্রী বিধাতার চরণে তার
আরোগ্য লাভের জন্য করুণ মিনতি'।"

এভাবেই কবি হ্নদয়ে নার্গিসেরক্ষত স্পষ্ট ভাবে ধরা পড়ে। চির বিদ্রোহী কবি প্রেমের দ্রোহে হয়ে উঠেন বিশুদ্ধ প্রেমিক। এ প্রেম-বিরহে'ই কবির সাথে বন্ধনে অাবদ্ধ হই অামরা। স্বাধীনতা পরবর্তীতে বাঙ্গলী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কবিকে নিয়ে অাসেন বাংলাদেশ, স্বীকৃতি পান জাতীয় কবির। কবির ৪১তম মহাপ্রয়াণে বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি রইল।

 

কাজী আরমানের ভাবনা পর্ব

স্টাফ | আপডেট: ০৪:২০, সেপ্টেম্বর ২৪ , ২০১৭

ভাবনা পর্ব কাজী মোহাম্মদ আরমান হোসেন এক. কোথায় যে পড়েছি, জীবনের সবচাইতে কষ্টের মুহূর্ত হচ্ছে যখন- সন্তান বুঝতে পারে, তার মা-বাবা বুড়ো হচ্ছে! নেপিয়ার রোডে হাঁটতে গিয়ে আমার মনে হল, রোদের স্তিমিত আলোয়.....

রাষ্ট্রনায়কের জন্মদিনে অভিযোগে ভরা.....

কলামিস্ট | আপডেট: ১৪:৫১, সেপ্টেম্বর ২৮ , ২০১৭

রাষ্ট্রনায়কের জন্মদিনে অভিযোগে ভরা শুভেচ্ছা শাকিল মাহমুদ দিন দিন আবেগ কমে যাচ্ছে... গল্প গুলো আগের মত আর গুছানো থাকে না... যত অল্প কথায় শেষ করা যায় আর কি? এইটা মনে হয় বয়সের দোষ... যাই হোক গল্প তো জীবনেরই.....

প্রধানমন্ত্রী নোবেল না পাওয়ায় আমরা.....

স্টাফ | আপডেট: ১০:৪০, অক্টোবর ০৬ , ২০১৭

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শান্তিতে নোবেল পুরস্কার না পাওয়ায় আমরা মর্মাহত ও দু:খিত বলে জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের.....

আমাদের পিতা তো স্পষ্ট বিভ্রান্তিতেই আছেন

স্টাফ | আপডেট: ১৪:৩৯, অক্টোবর ০৭ , ২০১৭

    ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ: পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন, স্মরণ করো, যখন তারা [ইউসুফ (আ.)-এর ভাইয়েরা] বলল, অবশ্যই ইউসুফ ও তাঁর ভাই (বিনইয়ামিন) আমাদের পিতার কাছে আমাদের চেয়ে অধিক প্রিয়, অথচ.....

  • সর্বশেষ
  • সর্বশেষ পঠিত

অবশেষে রানার বিরুদ্ধে আদালতে দুদকের চার্জশিট দাখিল

( ১০ জুলাই ২০১৪ ০৪:৫২ )

বাধা দিলে পাল্টা জবাব- খালেদা

( ১০ জুলাই ২০১৪ ০৪:৫২ )

'নক্ষত্র'-এ ই-শপিং

( ১০ জুলাই ২০১৪ ০৪:৫২ )

বিশ্বের শীর্ষ এক হাজার বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নেই ঢাবি

( ১০ জুলাই ২০১৪ ০৪:৫২ )