Main Menu

December, 2018

 

এইডস ঝুঁকিপূর্ণ যেসব জেলা

কাকলি সেন সেতু:: বাংলাদেশে ২৮ বছরেও এইডস আক্রান্ত অর্ধেক জনগোষ্ঠীকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। এতে আক্রান্তরা অজান্তেই পরিবারের প্রিয়জনসহ সুস্থ মানুষকে আক্রান্ত করছে। তবে এসব সমস্যা সমাধানে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে নতুন ৫টি আধুনিক চিকিৎসা কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে। প্রয়োজনের তুলনায় চিকিৎসা কেন্দ্র অনেক কম বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। বেসরকারি গবেষণা বলছে, শিরায় মাদক গ্রহণকারী, নারী যৌন কর্মী, সমকামী ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর মধ্যে এইডস সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি। এদের মধ্যে ঢাকায় অবস্থানরত শিরায় মাদক গ্রহণকারীদের অবস্থান শীর্ষে। এর পরেই রয়েছে দেশে ফেরা প্রবাসী জনশক্তি। এইডস আক্রান্ত এক রোগী বলেন, ‘আমারআরো পড়ুন


বোনকে দাফন করে ফেরার পথে নিজেই লাশ হলেন

আনিকা চৌধুরী:: বোনের লাশ দাফন করে ফেরার পথে নিজেই লাশ হয়ে ফিরলেন আপন ঠিকানায়! সোমবার সন্ধ্যায় সড়ক দুর্ঘটনায় এমনই একটি ঘটনা ঘটল ভোলার বোরহানউদ্দিনের ভোলা-চরফ্যাশন সড়কের বড়মানিকা ইউনিয়নের হাওলাদার বাড়ির দরজা নামক স্থানে। মৃতের বাড়ি ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানা এলাকায় বলে জানিয়েছেন, প্রত্যক্ষদর্শীরা। মৃতের নাম মাহিনুর বেগম (৪০)। তবে লাশের পুরো ঠিকানা জানা যায়নি। বোরহানউদ্দিন থানার উপসহকারী পুলিশ পরিদর্শক মহিমীনুল ইসলাম জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে ভোলা চরফ্যাশন মহাসড়কে চরফ্যাশন থেকে মাহিনুর মাইক্রোবাসযোগে ভোলা যাওয়ার পথে হাওলাদার বাড়ির দরজায় ভোলা থেকে আসা পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।আরো পড়ুন


ভারতে দুই সন্তানের বেশি হলে সরকারি সুবিধা দেয়া হবে

মহিয়া চৌধুরী:: ক্রমানুপাতে জনসংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে। এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে দুইয়ের বেশি সন্তান নেয়ার পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ সরকার। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে ৬১ হাজার ৮৫৫ বর্গমাইলের অন্ধ্র প্রদেশের জনসংখ্যা ৪ কোটি ৯৩ লাখ ৮৬ হাজার ৭৯৯ জন। অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর মতে গত ১০ বছরে প্রদেশের জনসংখ্যা ১.৬ শতাংশ কমেছে। এখনই জনসংখ্যায় তরুণদের অনুপাত বাড়াতে না পারলে আগামী দুই দশকে ‘বুড়ো’দের রাজ্যে পরিণত হবে অন্ধ্রপ্রদেশ। কমবে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যাও। সেই সংখ্যা আরও বাড়িয়ে রাজ্যে তরুণ প্রজন্মের সংখ্যা বাড়ানোর আশু প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন তিনি।আরো পড়ুন


ভোলা-বরিশাল সেতু অবশ্যই নির্মাণ করব: তোফায়েল

চন্দ্রিমা শুক্তা:: নিরঙ্কুশ বিজয় লাভের পর ভোলা-১ আসনে বিজয়ী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ভোলার মানুষের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তাদের জন্য কাজ করে ঋণের বোঝা কিছুটা লাঘব করব। ভোলাবাসীর স্বপ্ন ভোলা-বরিশাল সেতু অবশ্যই নির্মাণ করব। সোমবার সকালে ভোলার নিজ বাসভবনে প্রেসক্লাব থেকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানোর পর সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা জানান তোফায়েল আহমেদ। এ সময় মদনমোহন মন্দির কমিটির পক্ষ থেকেও হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা ফুলের শুভেচ্ছা জানান। মন্ত্রী বলেন, এ বিজয় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বিজয়। এ বিজয় শেখ হাসিনার উন্নয়নের বিজয়। এ বিজয় বিএনপির সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জনতার বিজয়। এ বিজয়ের ফলে বাংলাদেশআরো পড়ুন


শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে বি চৌধুরীর চিঠি

  শারমিন শিলা:: টানা তৃতীয়বারের মতো বিজয়ের রেকর্ড সৃষ্টি করায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। সোমবার রাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে পাঠানো এক চিঠিতে বি চৌধুরী শেখ হাসিনাকে এই অভিনন্দন জানিয়েছেন। সে সঙ্গে শেখ হাসিনাকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন তিনি। বি চৌধুরীর প্রেস সচিব জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। চিঠিতে বি চৌধুরী বলেন, আপনার নেতৃত্বে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আপনি পরপর তৃতীয়বারের মতো একটি মহাবিজয়ের রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। অবশ্যইআরো পড়ুন


নতুন সরকারের শপথগ্রহণের সম্ভাবনা রোববার

  শারমিন লাখি:: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে। ফলে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইতিমধ্যেই নির্বাচনে জয়ী সদস্যদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি শুরু করেছে সংসদ সচিবালয়। একই সঙ্গে সংসদ সদস্যদের নির্বাচনের বিষয়টি নিশ্চিত করে গ্রেজেট প্রকাশের কাজও শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। সংবিধান অনুযায়ী, গেজেট প্রকাশের তিন দিনের মধ্যে শপথ পড়াতে হবে। সূত্র জানায়, দু’একদিনের মধ্যেই নির্বাচিত সদস্যদের গেজেট জারি করবে নির্বাচন কমিশন। ইতিমধ্যে এর প্রস্তুতিও শুরু করেছে তারা। গেজেট প্রকাশের পরপরই স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীআরো পড়ুন


আসাদের গলায় জয়ের মালা

আনিকা চৌধুরী:; দীর্ঘ সাত বছর রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ২০১৮ সালে জয়ের মালা উঠেছে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের গলায়। সবাইকে চমকে দিয়ে হঠাৎই সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই গত ২৭ ডিসেম্বর সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় মানবিজ শহর ছেড়ে চলে গেছে কুর্দি যোদ্ধারা। জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত কুর্দিদের দখলে থাকা এটি ছিল সর্বশেষ ঘাঁটি। গত সপ্তাহে দামেস্কে দূতাবাস পুনরায় চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আসন্ন বছরে বাহরাইন, কুয়েতের মতো মধ্যপ্রাচ্যের প্রতিবেশী দেশ সিরিয়ার সঙ্গে ফের সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার চিন্তা করছে। সদস্য পদ বাতিলের ৭ বছর পরআরো পড়ুন


শিশু মৃত্যুর দায় ডেমোক্র্যাটদের

মারিয়া নূর:: মেক্সিকো সীমান্তে মার্কিন হেফাজতে থাকা অবস্থায় শিশু মৃত্যুর ঘটনায় ডেমোক্র্যাটদের দায়ী করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার দাবি, ডেমোক্র্যাটরা অভিবাসন প্রত্যাশীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ শিথিল রাখার নীতি অবলম্বন করায় তারায় অবৈধভাবে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মিত হলে অভিবাসন প্রত্যাশীরা এ চেষ্টা চালাবে না বলে দাবি করেন তিনি। গত কয়েক মাসে অভিবাসনের প্রত্যাশায় গুয়াতেমালা, হন্ডুরাস ও এল সালভাদর থেকে যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে ভিড় জমিয়েছে লাখো মানুষ। নিজ দেশে নিপীড়ন, দারিদ্র্য ও সহিংসতা থেকে বাঁচতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করছে তারা। তবে অবৈধভাবে প্রবেশকারীদের গ্রেফতার, বিচার ও বিতাড়নের হুশিয়ারি দিয়েআরো পড়ুন


যেখানে ব্যতিক্রম মিনু

যেখানে ব্যতিক্রম মিনু

  সাবরিনা হক:: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ৬ প্রার্থী ছাড়া বাকি সবাই হেরেছেন।শোচনীয় পরাজয় হয়েছে অনেকের। এদের মধ্যে হেভিওয়েট প্রার্থীও রয়েছেন কয়েক ডজন। জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে এমন প্রার্থীর সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়।লাখ লাখ ভোটের ব্যবধানে পরাজয়ের ভিড়ে ব্যতিক্রম রাজশাহী বিএনপির প্রভাবশালী নেতা মিজানুর রহমান মিনু। তিনি হেরেছেন তবে প্রতিদ্বন্দ্বী ফজলে হোসেন বাদশাকে ঘাম ঝড়িয়ে ছেড়েছেন।হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে এমন আসনগুলোর মধ্যে রাজশাহী-২ আসন অন্যতম। নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ১১ হাজার ৪৫৩ ভোট পেয়েছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মিজানুর রহমান মিনু ধানের শীষ প্রতীকেআরো পড়ুন


এক ট্রাম্পেই ডুবল ইরান

ইয়াসমিন আক্তার:: ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ (আগে আমেরিকার স্বার্থ) নীতিকে কাঁটায় কাঁটায় বাস্তবায়নের পথে হাঁটছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজের গোঁয়ার্তুমির জোরে ইরান চুক্তি প্রত্যাহার করেছেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে ট্রাম্প সব মিত্র দেশের উপদেশ আঁস্তাকুড়ে ছুড়ে ফেলে দিয়েছেন। তিনি খুবই স্থূলভাবে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, জার্মানিসহ অন্য দেশগুলোর স্বার্থের প্রতি অসম্মান করেছেন। চুক্তি থেকে সরে গিয়ে ‘ধর মার কাট’ নীতিতে ইরানের ওপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগ করেন ট্রাম্প। তেহরানের তেল রফতানি শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে মিত্র দেশের ওপরও চাপ দেন তিনি। এক ট্রাম্পই ইরানকে অর্থনৈতিকভাবেআরো পড়ুন