Main Menu

রাহুল নীতি পাল্টে ফেললেন সোনিয়া

কাকলি সেন সেতু:: ভারতের লোকসভা ভোটে বিপুল পরাজয়ের ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়াতে চাইছে কংগ্রেস। সভাপতির পদ থেকে রাহুল গান্ধীর সরে যাওয়ার পর কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন দায়িত্ব মা সোনিয়া গান্ধীর কাঁধেই।

সেই দায়িত্ব নেয়ার মাসখানেক পর বৃহস্পতিবার প্রথম বৈঠকে দলীয় নেতাদের কড়া বার্তা দিলেন সোনিয়া। রাহুলের একঘেয়েমি সোশ্যাল মিডিয়া নির্ভর রাজনীতি থেকে সরে এসে নেতাকর্মীদের রাজপথে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিলেন তিনি। একই সঙ্গে মোদি সরকারকে তুলাধোনা করেন গান্ধী পরিবারের এ বধূ। খবর এনডিটিভির।

বিজেপির কর্মপদ্ধতি নিয়ে দলীয় ব্যাখ্যার পাশাপাশি, কম সংখ্যা নিয়েও বিজেপির বিরুদ্ধে কোন পথে কংগ্রেস পাল্টা আক্রমণে নামবে তাও স্পষ্ট করেন সোনিয়া। তিনি বলেন, ‘কংগ্রেসের অবশ্যই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে থাকা উচিত। এ নিয়ে কেবল সোশ্যাল মিডিয়াতেই সক্রিয় হওয়া যথেষ্ট নয়। জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের নির্ভয়ে রাজপথে নামতে হবে। শহর, পৌর এলাকা, গ্রামে লড়াইয়ের জন্য নামতে হবে।’ নির্বাচনী প্রস্তুতি প্রসঙ্গে বলেন, ‘শিগগিরই আমরা তিন রাজ্যের নির্বাচনে লড়ছি।

এ পরিস্থিতি খুবই চ্যালেঞ্জের। যদি আমরা দলের স্বার্থকে সবার আগে রাখতে পারি তা হলে হারানো অবস্থান আবারও ফিরে পাব।’ সোনিয়া এ নির্দেশের মাধ্যমে মূলত রাহুলের টুইটনির্ভর রাজনীতি থেকে নেতাকর্মীদের বেরিয়ে আনার চেষ্টা করেছেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এ দিনের বৈঠকে বিজেপিকে আক্রমণ করেন সোনিয়া। তিনি বলেন, ‘জনতার রায়কে বিপজ্জনকভাবে অপব্যবহার করা হচ্ছে ও অপমান করা হচ্ছে।

মহাত্মা গান্ধী, সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল বা বিআর অম্বেডকরের মতো স্বাধীনতা সংগ্রামীদের যথাযথ সম্মান দেখানোর বদলে ঘৃণ্য উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে তাদের শিক্ষাকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে।’ সোনিয়া বলেন, ‘দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ভয়াবহ। ক্ষতির পরিমাণ ক্রমেই বাড়ছে।






আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*